সফল নারী

0

কাপড়ের উপর নিপুণ হাতে মনের মাধুরী মিশিয়ে সুচ আর হরেক রঙের সুতা দিয়ে নান্দনিক রূপে সাজিয়ে বৈচিত্রময় নকশা তুলে কাঁথা তৈরী করে গ্রাম-বাংলার বৌ-ঝি’রা । আর তা আমাদের কাছে নকশি কাঁথা নামে বেশ পরিচিত। আমরা নকশি কাঁথার গল্প শুনেছি অনেক, এবার শুনাবো নকশি কাঁথা সেলাই করা একজন পরিশ্রমি মানুষের গল্প। জি হ্যাঁ আমাদের এ পর্বের এমনই একজন সফল নারী নাছরিন আক্তার।
সংসারে বাবার অদায়িত্বশীলতা এবং অভাবের তাড়নায় পড়ালেখা করতে না পারলেও মা আর ছোট ভাই-বোনদের নিয়ে সংসারের হাল ধরেছেন ১৫ বছর বয়সি নাছরিন আক্তার।
তিনি জানান, এসএসসি পাশ করার পর আর পড়ালেখা করতে পারেননি তিনি। তার বাবা পরিবারে তেমন কোনো খরচ দেন না। তারপর অনেক চিন্তা করে নিজ উদ্যোগে শুরু করেন নকশি কাঁথা সেলাইয়ের কাজ। একটা কাঁথা সেলাই করতে প্রায় দুই মাস সময় লাগে। প্রতি দুই মাসে তার আয় হয় ৩-৪ হাজার টাকা। আর তা দিয়েই চলে সংসার এবং ছোট ভাই-বোনদের পড়ালেখার খরচ। এভাবেই চলছে চরফ্যাশনের কাশোরী নাছরিনের জীবনযাপন।
এগিয়ে যাক নাছরিন আক্তার এগিয়ে যাক সকল নারী।
নারীদের এমনসব সফলতার গল্প শুনুন রেডিও মেঘনা’র সাপ্তাহিক আয়োজন ‘সফল নারী’ অনুষ্ঠানে।
শুধুমাত্র ৯৯.০এফএম-এ।

অনুষ্ঠানটির প্রযোজনায়: ছিলেন নিশি মনি এবং উপস্থাপনায়: খাদিজাতুল মাওয়া।

Share.

Leave A Reply