প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের কথা

0

দুই আড়াই বছর বয়সেই প্রবিবন্ধী জীবন শুরু করেন দক্ষিণ ফ্যাশনগঞ্জের নাজমা আক্তার। ছোটবেলায় ব্যাক্টেরিয়া ঘটিত টাইফয়েট জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় হারিয়ে ফেলেন এক পায়ের চলার শক্তি। অনেক চিকিৎসা করার পরও স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি তিনি। অবশেষে লাঠির উপর ভর করে চলতে চলতে ৩০ বছরে পা দিয়েছেন নাজমা। প্রতিবন্ধীতা নাজমার জীবন থেকে স্বপ্ন-আশা এবং সুন্দর ভবিষ্যৎ কেড়ে নিয়ে গেছে। যার ফলে ১৫ বছর বয়সে বিয়ে হলেও বেশি দিন ঠাই পাননি স্বামীর সংসারে। এখন তার ১১-১২ বছরের মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতেই পার করছেন পঙ্গুত্ব জীবন। তার স্বামী সংসারের খরচ দেয়া তো দূরের কথা কোনো খোঁজ-খবরও রাখেন না। তারপরও একমাত্র মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে বড় চাকরী করানোর স্বপ্ন নিয়ে জীবন যুদ্ধে এগিয়ে চলেছেন প্রতিবন্ধী এই মানুষটি।
টাইফয়েট জ্বরে অক্রান্ত হয়ে শারীরিক ভাবে একটি পা হারিয়ে অক্ষমতা হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে কথা হয় চরফ্যাশন উপজেলার সদর হাসপাতালের ডা. মনজুরুল হাসানের সাথে। তিনি বলেন, শুধুমাত্র টাইফয়েট জ্বর নয় মানুষের দেহে আরো অনেক ভাইরাস জনিত রোগের কারণে পঙ্গুত্বের শিকার হতে পারে। তবে এসব রোগী গুলো যথার্থ চিকিৎসা পেলে ভালো হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

‘প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের কথা’ অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হয়েছে ১১ জানুয়ারি (শুক্রবার) সকাল ৯.২০ টায়। শুধুমাত্র রেডিও মেঘনা ৯৯.০ এফএম এ।
উপস্থাপনায় ছিলেন খাদিজা এবং প্রযোজনায় নিশি মনি।

Share.

Leave A Reply