মেঘনা নদীর ঢেউয়ের সাথে ভাসছে শিশুর জীবন

0

চরফ্যাসন বেতুঁয়ার নদী পাড়ের হনুফা বেগম (৩৫)। দুই ছেলে দুই মেয়ে সন্তানের মা তিনি। বেতুঁয়ার মেঘনা নদীর ধারে বসে হনুফা বেগম বাগদা চিংড়ি বেছে বেছে আলাদা পাত্রে রাখছেন। এই চিংড়ি কে ধরে আনছে জিজ্ঞেস করলে সামনে থাকা ৫ ও ৮ বছরের দুই ছেলেকে দেখিয়ে দেয়। তাদের দেখে অবাক হলেও এই কাজ করেই জীবনযাপন করে এই এলাকার শত শত শিশু ও তার পরিবার। এত ছোট ছোট ছেলেদের দিয়ে কেনো এই ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করাচ্ছেন? জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্বামী ৭ বছর আগে সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে মারা যায়। তারপর সন্তানদের ভরণ-পোষণের খরচ জোগাতে নিজেই নদীতে নেমে বাগদা চিংড়ি ধরার কাজ করতেন। ১০০টি বাগদা চিংড়ি ৫০ টাকায় বিক্রি করে যা আয় হত তা দিয়ে সংসার চলত। অন্য কোনো পেশায় তারা অভ্যস্ত না হওয়ায় ছেলেরা একটু বড় হলে বাপের এই পেশায় নেমে পড়ে। এসব কথা বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন হনুফা বেগম। কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, সামর্থ থাকলে ছেলে মেয়েদের পড়ালেখা করাতেন। তার এই না পারার কষ্টটা তাকে আরো বেশি কষ্ট দেয় বলে জানান হনুফা বেগম।

Share.

Leave A Reply