স্বাস্থ্যই সুখ

0

গত কয়েক দিনের ভারি বর্ষণে চরফ্যাসনের অনেক গ্রাম বৃষ্টির পানিতে প্লাবিত হয়েছে। আর দেখা দিয়েছে নানা রোগ। দাস কান্দি ম্যাজিস্ট্রেট বাড়ির কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে দেখা যায়, অনেক আক্রান্ত রোগী সেবা নিতে ভিড় করছে। তাদের মধ্যে সর্দি, কাশি, আমাশয়সহ বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ দেখা দিয়েছে। এই কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সেবিকা আছমা আক্তার জানান, বর্ষায় পানিবাহিত রোগের প্রকোপ বেশি থাকে। এর মধ্যে শিশুরা আক্রান্ত হয় বেশি। শিশুসহ প্রতিদিন চল্লিশ জনের বেশি রোগী পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে এখানে সেবা নিতে আসছে। তিনি বলেন, ডায়রিয়া হতে রক্ষা পেতে আমাদের সকলকেই সচেতন হবে। বিশুদ্ধ খাবার পানি ব্যবহার করতে হবে। পঁচা-বাসি খাবার, রাস্তার পাশে দূষিত পানির তৈরি শরবত পান থেকে বিরত থাকতে হবে। যত দূর সম্ভব গরম ও রোদ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন তিনি। এছাড়াও শিশুদের ডায়রিয়া হলে শূন্য থেকে ৫ মাস বয়সী শিশুদের স্যালাইনের পাশাপাশি মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে হবে। এর চেয়ে বেশি বয়সী বাচ্চাদের বুকের দুধের পাশাপাশি স্যালাইন ও স্বাভাবিক খাবার নির্দিষ্ট সময় পরপর খাওয়াতে হবে। অবস্থার উন্নতি না হলে স্থানীয় হাসপাতালে নিতে হবে। আর পূর্ণ বয়স্কদের ক্ষেত্রে প্রচুর স্যালাইন, তরল ও স্বাভাবিক খাবার দিতে হবে।

সমসাময়িক বিভিন্ন রোগ ও এর প্রতিকার নিয়ে পরামর্শ বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘স্বাস্থ্যই সুখ’। উপস্থাপনা তাসফিয়া এবং প্রযোজনা উম্মে মেঘা। শুননু প্রতি রবিবার সন্ধ্যা ৬টায়। শুধুমাত্র রেডিও মেঘনা ৯৯.০এফএম এ।

Share.

Leave A Reply